রক্তচাপ পরীক্ষার নিয়মাবলীঃ-

১) রক্তচাপ পরীক্ষার প্রারম্ভে রোগীকে কয়েক মিনিট নিরিবিলি শান্তভাবে অবস্থান করতে হবে। কেননা হেঁটে বা সিড়ি বেয়ে উপরে উঠার কারণে রোগীর পরিশ্রম হয়। ফলে শরীরের রক্তচাপ স্বাভাবিকভাবেই বেড়ে যেতে পারে।

২) মাথা গরম থাকলে, কোন কারণে টেনশন থাকলে, ঘুম না-হয়ে থাকলে তখন না মাপিয়ে পরে প্রশান্ত শরীর-মনে প্রেশার মাপান।

৩) রক্তচাপ মাপার সময় কমপক্ষে দুইবার ১-২ মিনিট ব্যবধানে মাপ নেওয়া ভাল। প্রথম দুইবার মাপের ক্ষেএে যদি রক্তচাপের তারতম্য দেখা যায় তবে ৩য় বার মাপ নেওয়া যেতে পারে।

৪) রোগী যে অবস্থানেই থাকুক না কেন, রক্তচাপ পরিমাপের সময় যন্ত্রের কাফ বা বাহু বন্ধনী রোগীর হার্টের লেভেলে রেখে তা বাঁধতে হবে। বর্তমানে কিছু ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্র রোগীরা নিজেরাই ব্যবহার করে থাকেন। সেইসব যন্ত্রের ক্ষেত্রে কাফ বাঁধা হয় কব্জিতে। সুতরাং তাদের ক্ষেত্রে কনুই ভাঁজ করে কব্জি হার্টের লেভেলে রাখতে হয়। মনে রাখবেন, রোগীর যে হাতে প্রেশার মাপা হচ্ছে তা যেন টেবিল বা অন্যত্র কোন কিছুর সাপোর্ট পায়।

৫) প্রথমবার রক্তচাপ পরিমাপের ক্ষেত্রে রোগীর উভয় হাতেই মাপ নেওয়া উচিত। কেননা বিভিন্ন রোগের কারণে দুই বাহুতে দুই রকম রক্তচাপ পাওয়া যেতে পারে। তবে এক্ষেত্রে তুলনামূলক উচ্চ মাত্রাকেই হিসেবে নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine − 8 =