ডায়াবেটিসে বংশগত প্রভাব রয়েছে। বাবার ডায়াবেটিস থাকলে সন্তানের ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা অন্যদের তুলনায় বেশী। মায়ের ডায়াবেটিস থাকলে এ আশঙ্কা আরো বেড়ে যায়। আর বাবা-মা উভয়ের থাকলে এ আশঙ্কা আরো অধিক বেড়ে যায়।

এজন্য বলা হয়, পিতা-মাতার ডায়াবেটিস থাকলে শৈশবকাল থেকেই শিশুকে স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যাভ্যাসও নিয়মিত ব্যায়াম বা হাঁটতে অভ্যস্ত করা জরুরী। এছাড়া খেয়াল রাখা উচিত, শিশুটির শরীর যেন মোটা না হয়ে যায়। আজকাল শিশুদের ডায়াবেটিস হওয়ার অন্যতম কারণ হলো তাদের অত্যধিক ওজন বৃদ্ধি, মাত্রাতিরিক্ত ফাস্টফুড, আইসক্রিম, চকোলেট, পেস্ট্রি ইত্যাদি খাওয়া এবং অপরিকল্পিত নগরায়নের ফলে খেলার মাঠ কমে যাওয়ায় পর্যাপ্ত খেলাধূলার সুযোগ না পাওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × four =